‘আপনার জন্য কবিতা’

- জন অংশগ্রহণ করেছেন।

 চীন ও বাংলাদেশের মৈত্রীর দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। 'দক্ষিণ রেশমপথ' এ মৈত্রীর অন্যতম মূল কারণ। প্রাচীনকালে ফা হিয়ান, হিউয়ান সাং, চেং হো ও অতীশ দীপঙ্করসহ চীন ও বাংলাদেশের বিশিষ্ট সন্ন্যাসী ও প্রতিনিধিদের একে অপরের দেশ ভ্রমণ দু'দেশের মৈত্রীর প্রমাণ। ১৯৭৫ সালে কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠিত হয় দু'দেশের মধ্যে। এর পর, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিকসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে চীন ও বাংলাদেশের মধ্যে ঘনিষ্ঠ বিনিময় ও সহযোগিতা অব্যাহত আছে। বর্তমানে বাংলাদেশের বৃহত্তম বাণিজ্যিক অংশীদার চীন। চীন বাংলাদেশি পণ্যের বৃহত্তম আমদানিকারকও বটে। তা ছাড়া, দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ হচ্ছে চীনের তৃতীয় বৃহত্তম বাণিজ্যিক অংশীদার।

প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং বলেন, চীন ও বাংলাদেশের মধ্যে কেবল মৈত্রী, আস্থা ও সহযোগিতার সম্পর্ক আছে। গত বছরের অক্টোবর মাসে চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং বাংলাদেশে সফর করেন। সফরকালে তিনি ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৭ সালকে 'চীন-বাংলাদেশ মৈত্রী বছর' হিসেবে ঘোষণা করেন। প্রেসিডেন্ট সি এই বলে আশা প্রকাশ করেন যে, চীন ও বাংলাদেশ হাতে হাত রেখে ঐতিহ্যগত বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ককে যৌথভাবে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবে এবং অভিন্ন কল্যাণের জন্য পরস্পরকে সহযোগিতা ও সমর্থন দিয়ে যাবে।

সুপ্রিয় বন্ধুরা, চীন আন্তর্জাতিক বেতারের বাংলা বিভাগ চীনের একমাত্র জাতীয় পর্যায়ের বাংলা ভাষার গণমাধ্যম। গত প্রায় ৫০ বছর ধরে চীন আন্তর্জাতিক বেতারের বাংলা বিভাগ দু'দেশকে আরও কাছাকাছি আনতে এবং দু'দেশের জনগণের মধ্যে মৈত্রীর সম্পর্ক গভীরতর করতে অব্যাহত প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছে। এ প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে এবং  'চীন-বাংলাদেশ বন্ধুত্বপূর্ণ বিনিময় বছর' উপলক্ষ্যে আমরা আপনাদের জন্য একটি নতুন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছি। অনুষ্ঠানের নাম 'আপনার জন্য কবিতা'।


খবর :
সর্বশেষ খবর চীন বিশ্ব দক্ষিণ এশিয়া

চীনা ভাষা শিখুন সংস্কৃতি জীবন বাণিজ্য চীনের বিশ্বকোষ