বর্তমান স্থান: মূল পাতা > খবর > সর্বশেষ খবর > প্রধান লেখা

‘দা ফা নালা'-র নতুন যাত্রা

2017-04-19 19:05:01

পশ্চিম চীনের কুইচৌ প্রদেশের জুন ই শহরের পাহাড়ের গভীরে অবস্থিত ‘দা ফা নালা' বেশ বিখ্যাত। বিশ বছর আগে উঁচু খাড়া পাহাড়ে নির্মিত দশ হাজার মিটার দৈর্ঘ্যের এ পানির নালা সংশ্লিষ্ট গ্রামের জমিতে সেচের কাজে ব্যবহৃত হয়। এ নালা সংশ্লিষ্ট গ্রামবাসীদের জীবনে ব্যাপক ইতিবাচক পরিবর্তন বয়ে এনেছে। নালাটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৩৬টি বছর। এ নালা গ্রামবাসীদের জন্য নতুন যুগে নতুন যাত্রার সূচনা করেছে।

‘দা ফা নালা'-র নতুন যাত্রা

জুন ই শহরের বোচৌ জেলার টুয়ানচিয়ে গ্রামের গ্রামবাসী থাং আন জুইয়ের কাছে সবচেয়ে আনন্দের কাজ হলো নিজেদের গরুগুলোকে দেখাশোনা করা। এই পাহাড়ি এলাকায় বড়-হওয়া প্রতিটি কৃষকের কাছে গরু খুবই গুরুত্বপূর্ণ। থাং আন জুই এর ব্যতিক্রম নন। তিনি বলেন, ‘আমার দশ-বারোটি গরু আছে। এ সংখ্যা ভবিষ্যতে আরও বাড়বে। আমি আরও বড় গোয়ালঘর নির্মাণ করবো।'

থাং আন জুই গরু পালন করে প্রতিবছর গড়ে প্রায় ৭০ থেকে ৮০ হাজার ইউয়ান আয় করেন। কিন্তু কুড়ি বছর আগে তার পুরো পরিবারের বার্ষিক আয় ছিল তিন হাজার ইউয়ানেরও কম। তাদের ভাগ্য বদলে দিয়েছে সহজলভ্য পানি।

থাং আন জুই বলেন, ‘আগে পানির সংকট ছিল। বেশি গরু পালন করা যেত না। দা ফা নালা নির্মিত হবার পর মানুষ ও গরুর খাবারপানির সমস্যার সমাধান হয়েছে।'

এখন গ্রামে পানি আসে দশ কিলোমিটার দূরের পাহাড় থেকে। আর এ জন্যই হুয়াং দা ফা গ্রামবাসীদের নিয়ে পাহাড় কেটে নালা নির্মাণ করেছিলেন। তাই স্থানীয় জনসাধারণ এ নালার নির্মাতা হুয়াং দা ফার নামে খালটির নামকরণ করেছে। হুয়াং দা ফা তার ২৩ বছর বয়সে নালা বা খালটির নির্মাণকাজ শুরু করেছিলেন। নির্মাণকাজ যখন শেষ হয় তখন তার বয় ৫৯ বছর।

হুয়াং দা ফা বলেন, ‘নালাটি নির্মাণের আগে আমাদের দু'টি গ্রামে একত্রে মাত্র ১৬ হেক্টর জমিতে ৩০ হাজার কেজি ধান উত্পন্ন হতো। নালাটি নির্মিত হবার পর আমাদের গ্রামের সব জমিতে এখন ফসলের চাষ হয়। কারণ, নালাটি সেচ সমস্যার সমাধান করেছে।'

খবর :
সর্বশেষ খবর চীন বিশ্ব দক্ষিণ এশিয়া

চীনা ভাষা শিখুন সংস্কৃতি জীবন বাণিজ্য চীনের বিশ্বকোষ