বর্তমান স্থান: মূল পাতা > জীবন > প্রধান লেখা

পেটের অতিরিক্ত মেদ থেকে বাঁচতে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুসারে চলুন

2018-09-02 18:10:40

পেটের অতিরিক্ত মেদ থেকে বাঁচতে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুসারে চলুন

নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকল বয়সের মানুষের এক বড় সমস্যা পেটের মেদ। অফিসে দীর্ঘসময় ধরে বসে থাকার কাজ, চর্বিযুক্ত খাবার, নিয়মিত পর্যাপ্ত শরীরচর্চার অভাব, সন্তান জন্মদান ইত্যাদি নানান কারণে সৃষ্টি হতে পারে এই সমস্যা। শত চেষ্টা করে, ডায়েট প্ল্যান করে কিংবা ব্যায়াম করেও যেন কমানো যায় না এই পেটের মেদ। তবে রোজকার রুটিনে কিছু কাজ বা অভ্যাস যোগ করে সহজেই দূরে থাকতে পারেন এই সমস্যা থেকে।


সকালের নাস্তায় আটার রুটির পরিবর্তে ওটমিল খাওয়া শুরু করুন। সাথে কোনো ফল রাখুন প্রতিদিন। ওটমিলে রয়েছে উচ্চমাত্রায় ফাইবার, যা পেটের মেদ ঝরাতে অতি কার্যকর। তাই রোজ নাস্তায় ওটমিল খেতে পারেন কোনো সবজি অথবা ফলের সাথে। প্রতিদিন অন্তত দুই কাপ সবুজ চা পান করুন। এতে আছে চর্বি পোড়ানোর উপাদান। খাদ্য-তালিকায় কর্বোহাইড্রেট কিংবা চিনিজাতীয় খাবারগুলো অর্ধেক পরিমাণ কমিয়ে ফেলুন।


প্রোটিন এবং ফাইবারসম্পন্ন খাবার গ্রহণ করুন। কার্বোহাইড্রেটের মধ্যে লাল চাল কিংবা লাল আটা গ্রহণ করতে পারেন। দিনের যেকোনো সময় অল্প ক্ষুধা মেটাতে টকদই খেতে পারেন। ফলের সাথে টকদই আপনার ক্ষুধা মেটানোর পাশাপাশি পেটের মেদ কমাতে সাহায্য করবে। প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমান। রাত জাগার অভ্যাস ত্যাগ করুন এবং ভোরে উঠুন। যাদের রাত জাগার অভ্যাস আছে তাদের পেটে মেদ হওয়ার আশঙ্কা বেশি থাকে। সেই সাথে মানসিক চাপমুক্ত জীবন যাপনের চেষ্টা করুন।

এ ছাড়া, বিশেষজ্ঞদের ৫টি পরামর্শ মেনে চলুন।

পরামর্শ ১. শরীরের গঠন বা ফিগারের ওপর গুরুত্ব দিন

শরীরের গঠন বা ফিগার ভাল থাকলে মানুষকে সুন্দর দেখায়। বয়স বাড়লে ফিগার আর আগের মতো সুন্দর থাকে না। এসময় স্থুলকায় হয়ে যাবার আশঙ্কাও দেখা দেয়। তাই বয়সের সাথে সাথে আমাদের উচিত আরও বেশি ফিগারসচেতন হওয়া। নিত্যদিনের খাওয়া-দাওয়ার ওপর খেয়াল করা উচিত আমাদের। চীনে একটি মজার কথা প্রচলিত, যদি তুমি নিজের মুখ নিয়ন্ত্রণ করতে না-পারো, তবে পা চালাও। এর মানে যদি খাওয়া একটু বেশি হয়, তবে সেই অতিরিক্ত খাবার হেঁটে তথা ব্যয়াম করে বার্ন করতে হবে।

খবর :
সর্বশেষ খবর চীন বিশ্ব দক্ষিণ এশিয়া

চীনা ভাষা শিখুন সংস্কৃতি জীবন বাণিজ্য চীনের বিশ্বকোষ