বর্তমান স্থান: মূল পাতা > সংস্কৃতি > প্রধান লেখা

কনটেইজন

2020-02-13 14:09:22

কনটেইজন

কনটেইজন (contagion) নামে ৮ বছর আগে তৈরি এই চলচ্চিত্র সম্প্রতি আবারও বেশ আলোচিত হয়ে উঠেছে। কারণ, চলচ্চিত্রটি সম্প্রতি চীনের উহান শহর থেকে উদ্ভূত নভেল করোনাভাইরাসের সঙ্গে অনেকটা মিলে যায়।

আসলে হলিউডের অনেক তরকার অভিনীত এই চলচ্চিত্রটি ২০১১ সালে তেমন জনপ্রিয়তা পায় নি। এবার সারা পৃথিবীতে নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর ব্রিটেনের (I Tunes) আই-টিউনসে চলচ্চিত্রটির বিক্রি বাড়তে শুরু করে এবং দ্রুত গতিতে ৮ম শীর্ষস্থানে চলে আসে।

নিউ সায়েনটিস্ট নামের পত্রিকাটি এই চলচ্চিত্র সম্পর্কে বলে, হলিউডের বাণিজ্যিক ফিল্মের মধ্যে এটি খুব বিরল। কারণ, বিজ্ঞানসম্মত বাস্তবতাকে এ চলচ্চিত্রে অনেক গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

এ চলচ্চিত্রের জন্য পেশাদার উপদেষ্টা হিসেবে প্রযোজনা সংস্থা বিশেষভাবে কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্রমণ এবং ইমিউন বিভাগের অধ্যাপক (ian lipkin) ইয়েন লিপকিনকে আমন্ত্রণ জানায়। যাতে বিজ্ঞান সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোর যথার্থতা নিশ্চিত করা যায়।

এখন সারা চীনে নভেল করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষাপটে এই চলচ্চিত্র নিয়ে আলোচনা করা বেশ বাস্তবসম্মত।

নাম শুনে বোঝা যায়, কনটেইজন (contagion) নামে এ চলচ্চিত্রে বিশ্বজুড়ে সংক্রামক রোগ নিয়ে একটি ঘটনা তুলে ধরেছে।

চলচ্চিত্রে দেখানো রোগের কারণ হলো এমইভি-১ নামে নতুন ভাইরাস।

সবকিছু খুব দ্রুত ঘটে যায়। হংকং থেকে ফিরে আসার পর এক কোম্পানির একজন সিনিয়র কর্মীর জ্বর ও কাশি হয়। মাত্র ৪ দিন পর তিনি হঠাত্ করে মারা যান। একইদিন তার ছেলেরও শ্বাস বন্ধ হয়ে আসে। তারপর হংকং ও টোকিওতে একই রকম মৃত্যু দেখা যায়। ভয়াবহ এই ভাইরাস সুবিধাজনক আধুনিক পরিবাহকের মাধ্যমে দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে। মাত্র ১০০ দিনের মধ্যে বিশ্বের ২ কোটি ৬০ লাখ মানুষের প্রাণ কেড়ে নেয় ভাইরাসটি।

1234...>
খবর :
সর্বশেষ খবর চীন বিশ্ব দক্ষিণ এশিয়া

চীনা ভাষা শিখুন সংস্কৃতি জীবন বাণিজ্য চীনের বিশ্বকোষ