বর্তমান স্থান: মূল পাতা > সংস্কৃতি > প্রধান লেখা

চীন-ভারত চলচ্চিত্র বিনিময় নিয়ে ভারতে চীনা চলচ্চিত্র সমিতির চেয়ারম্যানের বক্তব্য

2019-02-05 16:50:52

ভারতের চীনা চলচ্চিত্র সমিতির চেয়ারম্যান কিশোর জাওয়াদ বলেন, চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রে ভারত ও চীনের বিনিময়ের মাধ্যমে পরস্পরের কাছ থেকে শেখা উচিত্। চীন ও ভারতের দিন দিন উষ্ণ হয়ে ওঠা সাংস্কৃতিক বিনিময়ের প্রেক্ষাপটে ভারতের চীনা চলচ্চিত্র সমিতির চেয়ারম্যান সম্প্রতি মুম্বাইতে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে বলেন, সাংস্কৃতিক বিনিময়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মিডিয়া হিসেবে ভবিষ্যতে ভারত ও চীনের আরো বেশি চলচ্চিত্র একে অপরের বাজারে প্রবেশ করবে বলে তিনি আশা করেন। দু'দেশের চলচ্চিত্রের যার যার বৈশিষ্ট্য আছে, তাই পারস্পরিক বিনিময়ে একে অপরের কাছ থেকে সুবিধা গ্রহণ করে নিজের শূণ্যতা পূরণ করা উচিত্ বলে সাক্ষাত্কারে তিনি উল্লেখ করেন।

জাওয়াদ ভারতের জয়পুরে চীনের আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সবের সাংগঠনিক কাজে অংশ নেন। তার নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল চীনের ‘গোল্ডেন রোস্টার অ্যান্ড হান্ড্রেড ফ্লাওয়ার্স ফিল্ম ফেস্টিভালে' অংশ নেন। বহু বছর ধরে তিনি দেশ দু'টির সাংস্কৃতিক বিনিময়কে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার যথাসাধ্য প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছেন। দু'দেশের চলচ্চিত্রশিল্পের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে তিনি খুব ভালোভাবে জানেন। তিনি বলেন, ভারত ও চীন উভয়ই সভ্যতার সুপ্রাচীন দেশ। দু'দেশের সুদীর্ঘ ইতিহাস আছ। দু'দেশের চলচ্চিত্রে যার যার স্পষ্ট বৈশিষ্ট্য ও স্টাইল আছে।

জাওয়াদ বলেন, দৈনন্দিন জীবনে ভারতীয় জনগণ উদ্যমী। আমাদের গভীর পারিবারিক চিন্তাধারা আছে। বলিউডের চলচ্চিত্রে ব্যাপক নাচগানসহ বিভিন্ন উপাদান দেখা যায়। চীনের চলচ্চিত্রে উ সিয়া বা কুংফু চলচ্চিত্র বড় একটি বৈশিষ্ট্য। চীনের চলচ্চিত্র প্রসঙ্গে ভারতীয় জনগণের প্রাথমিক ছাপ কুংফু চলচ্চিত্র থেকে এসেছে। চীনের অনেক কুংফু তারকার ভারতে ব্যাপক ভক্ত আছে।

চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রে চীন ও ভারতের বিনিময় আরো সম্প্রসারণ প্রসঙ্গে জাওয়াদ বলেন, দু'দেশের চলচ্চিত্রের যার যার বৈশিষ্ট্য ও স্টাইল আছে বলে ভারতের বাজারে প্রবেশ করতে চাইলে চীনা চলচ্চিত্রে বেশি সঙ্গীত ও মানসিক ফ্যাক্টর যোগ দিতে হবে। সঙ্গে সঙ্গে বলিউডের চলচ্চিত্রে চীনের কুংফু চলচ্চিত্রের সুবিধাও গ্রহণ করা উচিত্ বলে তিনি মনে করেন।

খবর :
সর্বশেষ খবর চীন বিশ্ব দক্ষিণ এশিয়া

চীনা ভাষা শিখুন সংস্কৃতি জীবন বাণিজ্য চীনের বিশ্বকোষ