বর্তমান স্থান: মূল পাতা > সংস্কৃতি > প্রধান লেখা

সামাজিক সমস্যা সমাধানে বিভিন্ন দেশের মজার সিদ্ধান্ত

2015-03-16 15:23:28

ক্রোয়েশিয়ার জাগরেব শহরের ১০ লাখ জনসংখ্যার মধ্যে ৪১ হাজার জনের কোনো চাকরি নেই। শহরের বেকারত্বের হার অনেক বেশি এবং তা কমানো অনেক কঠিন। সম্প্রতি এ সমস্যা সমাধানের জন্য শহরের সরকার কিছু নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে এসব কর্মসংস্থানের আয়ের পদ্ধতি আগের তুলনায় কিছুটা ভিন্ন। তারা আগের শ্রমিকদের মত আয় পাবেন না। তবে স্কোর পাবেন। স্কোরটা বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যায়। যেমন ব্যক্তিগত উন্নয়নের জন্য প্রশিক্ষণ নেয়া অথবা বিলাসী ছুটি কাটানোর সুযোগ পাওয়া। প্রিয় শ্রোতা, এমন নীতি শুনে কেমন লাগছে  আপনার?

এখন আমরা নিশিত সূর্যের দেশ নরওয়ে যাবো। আমরা সবাই জানি, ছাত্রছাত্রীরা পরীক্ষা শেষে ছুটি পান এবং কিছুটা আরামআয়েশ করেন, তাইনা?

তবে নরওয়ের মাধ্যমিক স্কুলের স্নাতক ছাত্রছাত্রীরা স্নাতক পরীক্ষার আগে দুই সপ্তাহের ছুটি পান এবং পার্টি আয়োজন করে মজা করতে পারেন। আর উল্লেখযোগ্য বিষয় হল তা হল সরকারি ছুটি।

নরওয়ের মাধ্যমিক স্কুলের ছাত্রছাত্রীর ছুটি সাধারণত ১ মে থেকে শুরু হয়। এসময় তারা মনোযোগ দিয়ে পার্টি আয়োজন করে জীবনের নতুন পর্যায়ে প্রবেশের মুহূর্ত উদযাপন করতে পারেন। এ পার্টির ছুটি সাধারণত ১৫ মে পর্যন্ত। অর্থাত্ দেশটির স্বাধীনতা দিবস পর্যন্ত। এরপর তারা স্কুলে ফিরে স্নাতক পরীক্ষা ও উন্মুক্ত পরীক্ষায় অংশ নেন। তবে প্রতি বছর ছাত্রছাত্রীরা ছুটিতে এত মজা করেন যে, ছুটি শেষে আবার মনকে লেখাপড়ায় ফিরিয়ে আনা অনেক কঠিন ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। তাই দেশটির শিক্ষামন্ত্রী ঘোষণা করেন, প্রতি বছরের পরীক্ষার সময় জুন মাসের প্রথম দিকে স্থগিত রাখা হবে। তিনি বলেন, ১৩ বছরের লেখাপড়া শেষ হবে, ছাত্রছাত্রীরা এর জন্য উদযাপন করবে, আমরা পুরোপুরিভাবে এর সমর্থন করি। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, পরীক্ষা ও উদযাপন অনুষ্ঠান ভাগাভাগি করবো, যাতে ছাত্রছাত্রীরা পরীক্ষার জন্য ভালো প্রস্তুতি নিতে পারেন।

আপনারা কি জানেন, নাইজেরিয়ার উত্তরাঞ্চলের ইউবে রাজ্য 'ডাকাতের স্বর্গ' হিসেবে পরিচিত। এখানে ডাকাতের সংখ্যা অনেক বেশি। আগে রাজ্য সরকার ডাকাত দমনে খুব কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছেন। এক বছরের মধ্যে ৩ হাজার ডাকাতকে হত্যা করেন দেশটির সরকারি বাহিনী। কিন্তু সম্প্রতি সরকারের কৌশল পরিবর্তন হয়েছে এবং সরকার নরম ব্যবস্থা নিয়েছে। যদি কেউ ডাকাতি না করার প্রতিশ্রুতি দেন তাহলে সরকার তাদেরকে ক্ষমা করবে এবং ১৫৪ মার্কিন ডলারের ভর্তুকি দেবে। এর পূর্বশর্ত হল তাদেরকে আত্মসমর্পণ করতে হবে, অস্ত্র জমা দিতে হবে এবং উন্মুক্তভাবে প্রতিশ্রুতি দিতে হবে।

বর্তমানে নাইজেরিয়ায় অনেকেই বিশ্বব্যাংকের নির্ধারিত দারিদ্রসীমার নিচে জীবনযাপন করেন। সরকারের এ ১৫৪ মার্কিন ডলারের ভর্তুকি দেশের অধিকাংশ মানুষের ৩ মাসের আয়ের সমান। তাই অনেকেই সরকারের এ পদক্ষেপে ডাকাতি করা ছেড়ে দিয়েছেন এবং স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসে সুন্দরভাবে জীবন কাটানোর জন্য সংগ্রাম করছেন। (ফেইফেই/টুটুল)


সামাজিক সমস্যা সমাধানে বিভিন্ন দেশের মজার সিদ্ধান্ত

খবর :
সর্বশেষ খবর চীন বিশ্ব দক্ষিণ এশিয়া

চীনা ভাষা শিখুন সংস্কৃতি জীবন বাণিজ্য চীনের বিশ্বকোষ