বর্তমান স্থান: মূল পাতা > সংস্কৃতি > প্রধান লেখা

সাংহাইয়ে ‘শিশুর বাড়ি'

2015-03-03 19:20:39

‘শিশুর বাড়ি'দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে সাংহাইয়ে উন্নত চিকিত্সার জন্য আসা শিশুদের অস্থায়ী আশ্রয়স্থল। এখানে শিশুদের বিনামূল্যে রাখা হয়, চিকিত্সার ব্যবস্থা করা হয় এবং তাদের যত্ন-আত্তি করা হয়। সাধারণত যে সব শিশুর শরীরে অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন হয়, তেমন শিশুদের অস্ত্রোপচারের আগে ও পরে এখানে অস্থায়ীভাবে রাখা যায়। যেসব শিশু এখানে সেবাযত্ন পেয়ে থাকে, সেসব শিশুর অধিকাংশই আসে দেশের বিভিন্ন দরিদ্র অঞ্চল থেকে।

দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে সাংহাইয়ে উন্নত চিকিত্সার জন্য আসা শিশুদের প্রয়োজনের কথা চিন্তা করে তাদের বিনামূল্যে সেবা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবক। তাদেরই উদ্যোগে ২০০৮ সালের মে মাসে সাংহাইতে প্রতিষ্ঠিত হয় ‘শিশুর বাড়ি'।

প্রতিষ্ঠাতাসদস্যদের সবাই কোনো-না-কোনো শিশুর মা। তাই তারা ভালোভাবেই জানতেন যে শিশুদের জন্য মায়ের যত্ন কতো গুরুত্বপূর্ণ। ৬৩ বছর বয়সি চুও সু পিং এ সংস্থায় তার দিনের পুরো সময়টাই ব্যয় করেন। চু সু পিং বলেন

“২০০৯ সাল থেকে আমি এ সংস্থায় স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ শুরু করি। এখন আমার জীবন এ সংস্থাকেন্দ্রীক। পেশাদার জীবন থেকে আমি অবসর নিয়েছি। তাই শিশুদের বেশি সময় দিতে পারি।”

চু সু পিং সাংহাইয়ের বাসিন্দা নন। তার বাড়ি আন হুই প্রদেশে। ২০০৮ সালে অবসর নেওয়ার পর তিনি আন হুই প্রদেশের একটি গণকল্যাণ সংস্থায় কাজ শুরু করেন। একবার চিকিত্সার জন্য তারা একটি অসুস্থ শিশু নিয়ে আন হু থেকে সাংহাই আসেন। সাংহাইতে তিনি ‘শিশুর বাড়ি'-র এক কর্মীর সঙ্গে পরিচিত হন। ঠিক সে সময়টায় চুও সু পিং ‘শিশুর বাড়ি'তে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেন এবং গত ৬ বছর ধরে প্রতিদিন হাসপাতাল ও ‘শিশুর বাড়ি'-র মধ্যে তার আসা-যাওয়া চলছে। এখন শিশুদের সঙ্গে থাকাই তার নতুন কাজ। যেসব শিশু এখানে সেবা নিয়ে বাড়ি চলে যায়, চুও সু পিংয়ের মনে সেসব শিশুর স্মৃতি স্থায়ী হয়ে যায়।

খবর :
সর্বশেষ খবর চীন বিশ্ব দক্ষিণ এশিয়া

চীনা ভাষা শিখুন সংস্কৃতি জীবন বাণিজ্য চীনের বিশ্বকোষ